কিভাবে শনাক্ত করবেন নকল ফোন

মনিরুজ্জামান রাফি ||

আমাদের এই প্রযুক্তির যুগে আমরা অনেকাংশেই মোবাইল ফোনের উপর নির্ভরশীল। মোবাইল ফোন ছাড়া আমাদের এক মূহুর্তও চলতে পারি না , অফিস থেকে শুরু করে পার্সোনাল সকল কাজই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে করা হয়। কিন্ত আমরা কি জানি আমাদের হাতের অতি প্রয়োজনীয় মোবাইল ফোনটি কি আসল নাকি নকল অথাৎ এটা কি কোন ফোনের ক্লোন কপি ?

আপনার ফোনটি যদি আসলেই নকল হয়ে থাকে তাহলে আপনার ফোনটি শীঘ্রই নেটওয়ার্ক থেকে বিচ্ছিন্ন হতে পারে। এছাড়াও এই ফোন ব্যবহারের ফলে আপনি যে কোন ধরনের বিপদেও পড়তে পারেন।তাই এখনি পরীক্ষা করে নিন আপনার ফোনটি আসল নাকি নকল। আজ আমি আপনাদেরকে বলবো কিভাবে আপনারা নকল ফোন সনাক্ত করতে পারেন। এবং সেই ফোন কেনা থেকে বিরত থাকতে পারে। তো চলুন জেনে নেয়া যাক।

আপনারা কিভাবে জানতে পারবেন যে, আপনারি ফোনটি আসল নাকি নাকি?

আপনার ফোনেটি আসল কিনা তা যাচাই এর ক্ষেত্রে মোবাইল ফোনের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করতে হবে  KYD ও ১৫  ডিজিটের  IMEI  নাম্বার এবং তা পাঠিয়ে দিতে হবে ১৬০০২ নম্বরে । ফিরতি মেসেজে জানিয়ে দেয়া হবে আপনার ফোনটি আসল নাকি নকল।

আপনার ফোনের কভার বা স্টিকারে আপনার IMEI নাম্বার দেয়া আছে এছাড়াও *#০৬# ডায়াল করেও IMEI নম্বর জানা যাবে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, গত ১ আগস্ট ২০১৯ থেকে যে সকল নকল ফোন আমদানি হয়েছে। সেগুলো খুব অচিরেই ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টারের (এনই আই আর )মাধ্যমে  বন্ধ করে দেয়া হবে।

তাই আপনারা যারা নতুন ফোন কিনবেন ভাবছেন তারা অবশ্যই IMEI দিয়ে পরীক্ষা করে নিবেন। যে আপনার ফোনটি কি আসল নাকি নকল ।অন্যথায় ভবিৎতে নেটওয়ার্ক এক্সেস হারাতে পারেন। আর সেই সাথে আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনটিও পরীক্ষা করে নিন উপরে দেয়া নিয়ম দেখে। এছাড়াও আপনারা নতুন ফোন কেনার ক্ষেত্রে নন ব্যান্ডেড ফোন কেনা থেকে বিরত থাকুন। কেননা এইসব ফোন অনেক সময়ই নকল হয়ে থাকে। অনেক ফোনে অরজিনাল ব্যান্ডের লগো দেয়া থাকে সেক্ষেত্রে আপনারা IMEI এর মাধ্যমে অবশ্যই অবশ্যই পরীক্ষা করে নিবেন।

Share
  •  
  •  

Leave a Reply